ঢাকা ০৬:৩৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুষ্টিয়ায় তৃতীয় দিনের মতো চলছে বাস ধর্মঘট, ভোগান্তিতে সাধারণ যাত্রীরা

কুষ্টিয়া ও ঝিনাইদহ জেলার বাস শ্রমিকদের মারধর ও বাসের ট্রিপ নিয়ে জটিলতায় তৃতীয় দিনের মতো কুষ্টিয়া থেকে ফরিদপুর ও খুলনা রুটে অনির্দিষ্টকালের বাস ধর্মঘট চলছে। তিনদিন ধরে বাস চলাচল বন্ধ থাকায় এসব রুটে যাতায়াতকারী সাধারণ যাত্রীদের মারাত্মক ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।
গত শুক্রবার (৭ এপ্রিল) ভোর থেকে কুষ্টিয়া-খুলনা ও কুষ্টিয়া-ফরিদপুর রুটে কুষ্টিয়া জেলা মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ডাকে এ ধর্মঘট চলছে। সংকট নিরসনে শনিবার ধর্মঘটের বিষয়ে জেলা প্রশাসনের সাথে কুষ্টিয়া বাস মালিক-শ্রমিকদের বৈঠক হলেও, কোন সমাধান হয়নি।
এতে আরও ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা। অনেকে বাধ্য হয়ে ভেঙ্গে ভেঙ্গে অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে গন্তব্যে যাচ্ছেন। ফরিদপুরের বোয়ালিয়া যাওয়ার জন্য কুষ্টিয়া কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে সপরিবারে অপেক্ষা করতে দেখা যায় সাহিদা খাতুন নামের এক গৃহবধূকে। তিনি বলেন, ‘যেখানেই সমস্যার সৃষ্টি হোক না কেনো পরিশেষে ভোগান্তি এসে ভর করে সাধারণ জনগণের ঘাড়ে। দুই দিন ধরে বাস বন্ধ, এতে বাসের শ্রমিক বা প্রশাসনের কিছু মনে না হলেও ভোগান্তিটা আমরাই পোহাচ্ছি।
কুষ্টিয়া জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসেন লাবলু বলেন, ‘ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে বাস-শ্রমিকদের ওপর হামলার প্রতিবাদে এবং জড়িতদের গ্রেপ্তারের দাবিতে বাস ধর্মঘট চলমান রয়েছে।
এদিকে বাস শ্রমিকরা জানান, ঝিনাইদহ মোটর শ্রমিক নেতাদের দাবির বিষয়ে আলোচনার জন্য, বৃহস্পতিবার বিকেলে কালীগঞ্জে গেলে একপর্যায়ে কুষ্টিয়ার পরিবহন শ্রমিকদের মারধর করা হয়। এরপর মধ্যরাতে কুষ্টিয়ায় গাড়ি ভাংচুরের অভিযোগও ওঠে। এর প্রতিবাদে শুক্রবার সকাল থেকে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট শুরু করে কুষ্টিয়া বাস শ্রমিক ও মালিক গ্রুপ।

আপলোডকারীর তথ্য

নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ বিরতি চুক্তিতে বাধা দেয়ার অভিযোগ

কুষ্টিয়ায় তৃতীয় দিনের মতো চলছে বাস ধর্মঘট, ভোগান্তিতে সাধারণ যাত্রীরা

আপডেট সময় : ০১:৩০:৩২ অপরাহ্ন, রবিবার, ৯ এপ্রিল ২০২৩

কুষ্টিয়া ও ঝিনাইদহ জেলার বাস শ্রমিকদের মারধর ও বাসের ট্রিপ নিয়ে জটিলতায় তৃতীয় দিনের মতো কুষ্টিয়া থেকে ফরিদপুর ও খুলনা রুটে অনির্দিষ্টকালের বাস ধর্মঘট চলছে। তিনদিন ধরে বাস চলাচল বন্ধ থাকায় এসব রুটে যাতায়াতকারী সাধারণ যাত্রীদের মারাত্মক ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।
গত শুক্রবার (৭ এপ্রিল) ভোর থেকে কুষ্টিয়া-খুলনা ও কুষ্টিয়া-ফরিদপুর রুটে কুষ্টিয়া জেলা মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ডাকে এ ধর্মঘট চলছে। সংকট নিরসনে শনিবার ধর্মঘটের বিষয়ে জেলা প্রশাসনের সাথে কুষ্টিয়া বাস মালিক-শ্রমিকদের বৈঠক হলেও, কোন সমাধান হয়নি।
এতে আরও ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা। অনেকে বাধ্য হয়ে ভেঙ্গে ভেঙ্গে অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে গন্তব্যে যাচ্ছেন। ফরিদপুরের বোয়ালিয়া যাওয়ার জন্য কুষ্টিয়া কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে সপরিবারে অপেক্ষা করতে দেখা যায় সাহিদা খাতুন নামের এক গৃহবধূকে। তিনি বলেন, ‘যেখানেই সমস্যার সৃষ্টি হোক না কেনো পরিশেষে ভোগান্তি এসে ভর করে সাধারণ জনগণের ঘাড়ে। দুই দিন ধরে বাস বন্ধ, এতে বাসের শ্রমিক বা প্রশাসনের কিছু মনে না হলেও ভোগান্তিটা আমরাই পোহাচ্ছি।
কুষ্টিয়া জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসেন লাবলু বলেন, ‘ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে বাস-শ্রমিকদের ওপর হামলার প্রতিবাদে এবং জড়িতদের গ্রেপ্তারের দাবিতে বাস ধর্মঘট চলমান রয়েছে।
এদিকে বাস শ্রমিকরা জানান, ঝিনাইদহ মোটর শ্রমিক নেতাদের দাবির বিষয়ে আলোচনার জন্য, বৃহস্পতিবার বিকেলে কালীগঞ্জে গেলে একপর্যায়ে কুষ্টিয়ার পরিবহন শ্রমিকদের মারধর করা হয়। এরপর মধ্যরাতে কুষ্টিয়ায় গাড়ি ভাংচুরের অভিযোগও ওঠে। এর প্রতিবাদে শুক্রবার সকাল থেকে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট শুরু করে কুষ্টিয়া বাস শ্রমিক ও মালিক গ্রুপ।