ঢাকা ০৫:০৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এস এম রবির সুদক্ষ নেতৃত্বে এগিয়ে যাবে ঝিনাইদহ সদর উপজেলা যুবলীগ 

আগামী, ১৩ই মে, ঝিনাইদহ সদর উপজেলা যুবলীগের সন্মেলন…. উক্ত সন্মেলনে, এস.এম.রবিই সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হবে বলে ঝিনাইদহের যুব সমাজের প্রত্যাশা।তারুন্যদীপ্ত,নির্ভীক,সাহসী,ত্যাগী সাবেক এই ছাত্রলীগ নেতাই হবে আগামী ঝিনাইদহ সদর উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক ,এমনটিই গুন্জন উঠেছে শহরব্যাপী।এস এম রবি ঝিনাইদহ শহরের বাইপাস মোড়ের ছোট কামারকুন্ড গ্রামের একটি সাধারন পরিবারে জন্মগ্রহন করে।স্কুল জিবন থেকেই সে ছিল কর্মচঞ্চল ও সাহসী এবং ডানপিটে স্বভাবের।২০০৬ সালে ঝিনাইদহ সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল এ্যান্ড কলেজ থেকে এস এস সি পাশ করে সরকারি কেশবচন্দ্র মহাবিদ্যালয়ে এইচ এস সি ভর্তি হয়ে ২০০৮ সাল উত্তীর্ন হয়,এই মহাবিদ্যালয়েই বি এ অনার্স (দর্শনে) ভর্তি হয় এবং এখান থেকেই স্নাতকোত্তোর ডিগ্রী লাভ করে।ছোটবেলা থেকেই রাজনীতির প্রতি ছিল তার প্রচন্ড আগ্রহ।বাঙ্গালি জাতির মুক্তির মহানায়ক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে বুকে ধারন করে তাঁরই হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগে যোগদান করে।ছাত্রলীগ সহ দলীয় সকল কর্মকান্ডে সক্রিয় অংশগ্রহনের মাধ্যমে মিছিল স্লগানে রাজপথ প্রকম্পিত করছে দীর্ঘদিন ধরে,এরই ধারাবাহিকতায় ২০১১ সালে ঝিনাইদহ জেলা ছাত্রলীগের সহ- সভাপতি নির্বাচিত হয়।প্রচন্ড ডানপিটে স্বভাবের কারনেই প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে গিয়ে একাধিকবার স্বীকার হয়েছে হামলা মামলার।তারপরেও থেমে থাকেনি তার সুদীর্ঘ রাজনৈতিক চিন্তা চেতনার।রাজনীতির পাশাপাশি অন্ধকার ও কুসংস্কারাচ্ছন্ন সমাজ ব্যবস্থা কে সংস্কারের কাজেও মনোনিবেশ করেছে সাবেক এই ছাত্রনেতা।মুমূর্ষু  রোগীর রক্তের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে গড়ে তুলেছেন মাদাঁর তেরেসা ব্লাডব্যাংক।মহামারি আকারে ধারন করা শব্দদূষন নিয়ে কাজ করে চলেছে স্ব-উদ্যগে ।শব্দদূষন নিয়ে আন্দোলন করা সংগঠন যুব ফেডারেশন  ঝিনাইদহ জেলা শাখার আহবায়ক হিসাবে কাজ করে সাড়া ফেলেছে ঝিনাইদহ জেলা সহ সারাদেশব্যপী ।সাপে কামড়ানো রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে এন্টিভেনম ইনজেকশন না দিয়ে ওঝা দিয়ে ঝাড়ফুক করানোর ফলে প্রতিবছরই বাংলাদেশে বহুলোক মারা যায়।ওঝাঁ /ঝাড়ফুক আধুনিক যুগেও সামাজিক ব্যাধি ও চলমান কুসংস্কার ।চরম সামাজিক অবক্ষয়ের হাত থেকে মানুষকে সচেতন করতে নাটক ,সেমিনার,মানববন্ধন দেয়াল লিখন পোষ্টার লাগানসহ নানাবিধ কর্মকান্ডের মাধ্যমে চালিয়ে যাচ্ছে সমাজ সংস্কারের কাজ।যা ইতিমধ্য বিভিন্ন পত্রপত্রিকা ও সোসাল মিডিয়ায় বহুল আলোচিত ও সমালোচিত ।একজন রিপোর্টার হিসাবে আসামান্য অবদান রেখে চলেছে সাংবাদিকতায়।সমাজের নানা অনিয়ম ,অসঙ্গতি দূর্নিতী তুলে ধরে তার সুনিপুন লেখনীর মাধ্যমে।যার ফলশ্রতিতে ২০২০ এবং ২০২৩ সালে ঝিনাইদহ জেলা রিপোর্টার্স ইউনিটির দ্বিবার্ষিক নির্বাচনে পরপর দুবার সুষ্ট ও নিরপেক্ষ ভোটে প্রচার সম্পাদক নির্বাচিত হয়ে দক্ষতার সাথে সাংগঠনিক দায়িত্ব পালন করে আসছে।একজন মানুষ একাধারে অনেক দায়িত্ব পালনে কখনও কখনও কিছু ভূলত্রুটি হওয়াই স্বাভাবিক।একান্ত সাক্ষাতকারে রবি বলে সকল ভূল ত্রুটিকে পেছনে ফেলে সকল মানুষের দোয়া ও ভালোবাসা নিয়ে ,ঝিনাইদহ সদর উপজেলা যুবলীগের সম্মেলনে সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হলে উপজেলা যুবলীগকে সুসংগঠিত করার মাধ্যমে একটি প্রশিক্ষিত শক্তিশালী সংগঠন উপহার দেওয়ার অভিপ্রায় ব্যক্ত করে তরুন প্রজন্মের জনপ্রিয় এই সাবেক ছাত্রনেতা।
ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ বিরতি চুক্তিতে বাধা দেয়ার অভিযোগ

এস এম রবির সুদক্ষ নেতৃত্বে এগিয়ে যাবে ঝিনাইদহ সদর উপজেলা যুবলীগ 

আপডেট সময় : ০৪:১০:১৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১০ মে ২০২৩
আগামী, ১৩ই মে, ঝিনাইদহ সদর উপজেলা যুবলীগের সন্মেলন…. উক্ত সন্মেলনে, এস.এম.রবিই সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হবে বলে ঝিনাইদহের যুব সমাজের প্রত্যাশা।তারুন্যদীপ্ত,নির্ভীক,সাহসী,ত্যাগী সাবেক এই ছাত্রলীগ নেতাই হবে আগামী ঝিনাইদহ সদর উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক ,এমনটিই গুন্জন উঠেছে শহরব্যাপী।এস এম রবি ঝিনাইদহ শহরের বাইপাস মোড়ের ছোট কামারকুন্ড গ্রামের একটি সাধারন পরিবারে জন্মগ্রহন করে।স্কুল জিবন থেকেই সে ছিল কর্মচঞ্চল ও সাহসী এবং ডানপিটে স্বভাবের।২০০৬ সালে ঝিনাইদহ সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল এ্যান্ড কলেজ থেকে এস এস সি পাশ করে সরকারি কেশবচন্দ্র মহাবিদ্যালয়ে এইচ এস সি ভর্তি হয়ে ২০০৮ সাল উত্তীর্ন হয়,এই মহাবিদ্যালয়েই বি এ অনার্স (দর্শনে) ভর্তি হয় এবং এখান থেকেই স্নাতকোত্তোর ডিগ্রী লাভ করে।ছোটবেলা থেকেই রাজনীতির প্রতি ছিল তার প্রচন্ড আগ্রহ।বাঙ্গালি জাতির মুক্তির মহানায়ক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে বুকে ধারন করে তাঁরই হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগে যোগদান করে।ছাত্রলীগ সহ দলীয় সকল কর্মকান্ডে সক্রিয় অংশগ্রহনের মাধ্যমে মিছিল স্লগানে রাজপথ প্রকম্পিত করছে দীর্ঘদিন ধরে,এরই ধারাবাহিকতায় ২০১১ সালে ঝিনাইদহ জেলা ছাত্রলীগের সহ- সভাপতি নির্বাচিত হয়।প্রচন্ড ডানপিটে স্বভাবের কারনেই প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে গিয়ে একাধিকবার স্বীকার হয়েছে হামলা মামলার।তারপরেও থেমে থাকেনি তার সুদীর্ঘ রাজনৈতিক চিন্তা চেতনার।রাজনীতির পাশাপাশি অন্ধকার ও কুসংস্কারাচ্ছন্ন সমাজ ব্যবস্থা কে সংস্কারের কাজেও মনোনিবেশ করেছে সাবেক এই ছাত্রনেতা।মুমূর্ষু  রোগীর রক্তের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে গড়ে তুলেছেন মাদাঁর তেরেসা ব্লাডব্যাংক।মহামারি আকারে ধারন করা শব্দদূষন নিয়ে কাজ করে চলেছে স্ব-উদ্যগে ।শব্দদূষন নিয়ে আন্দোলন করা সংগঠন যুব ফেডারেশন  ঝিনাইদহ জেলা শাখার আহবায়ক হিসাবে কাজ করে সাড়া ফেলেছে ঝিনাইদহ জেলা সহ সারাদেশব্যপী ।সাপে কামড়ানো রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে এন্টিভেনম ইনজেকশন না দিয়ে ওঝা দিয়ে ঝাড়ফুক করানোর ফলে প্রতিবছরই বাংলাদেশে বহুলোক মারা যায়।ওঝাঁ /ঝাড়ফুক আধুনিক যুগেও সামাজিক ব্যাধি ও চলমান কুসংস্কার ।চরম সামাজিক অবক্ষয়ের হাত থেকে মানুষকে সচেতন করতে নাটক ,সেমিনার,মানববন্ধন দেয়াল লিখন পোষ্টার লাগানসহ নানাবিধ কর্মকান্ডের মাধ্যমে চালিয়ে যাচ্ছে সমাজ সংস্কারের কাজ।যা ইতিমধ্য বিভিন্ন পত্রপত্রিকা ও সোসাল মিডিয়ায় বহুল আলোচিত ও সমালোচিত ।একজন রিপোর্টার হিসাবে আসামান্য অবদান রেখে চলেছে সাংবাদিকতায়।সমাজের নানা অনিয়ম ,অসঙ্গতি দূর্নিতী তুলে ধরে তার সুনিপুন লেখনীর মাধ্যমে।যার ফলশ্রতিতে ২০২০ এবং ২০২৩ সালে ঝিনাইদহ জেলা রিপোর্টার্স ইউনিটির দ্বিবার্ষিক নির্বাচনে পরপর দুবার সুষ্ট ও নিরপেক্ষ ভোটে প্রচার সম্পাদক নির্বাচিত হয়ে দক্ষতার সাথে সাংগঠনিক দায়িত্ব পালন করে আসছে।একজন মানুষ একাধারে অনেক দায়িত্ব পালনে কখনও কখনও কিছু ভূলত্রুটি হওয়াই স্বাভাবিক।একান্ত সাক্ষাতকারে রবি বলে সকল ভূল ত্রুটিকে পেছনে ফেলে সকল মানুষের দোয়া ও ভালোবাসা নিয়ে ,ঝিনাইদহ সদর উপজেলা যুবলীগের সম্মেলনে সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হলে উপজেলা যুবলীগকে সুসংগঠিত করার মাধ্যমে একটি প্রশিক্ষিত শক্তিশালী সংগঠন উপহার দেওয়ার অভিপ্রায় ব্যক্ত করে তরুন প্রজন্মের জনপ্রিয় এই সাবেক ছাত্রনেতা।