ঢাকা ০২:৫৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও বসতবাড়ি ভাংচুরের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

ঝিনাইদহে এক পৌর কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান।

শনিবার দুপুরে জেলা রিপোর্টাস ইউনিটির কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলনে শৈলকুপা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নিলুফা ইয়াসমিন ও তার স্ব-পরিবার উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে শৈলকুপা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নিলুফা ইয়াসমিন অভিযোগ করেন,
শৈলকুপা পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের ফাজিলপুরে অবস্থিত নিলুফা প্রি ক্যাডেট এবং নিলুফা প্রতিবন্ধী স্কুলসহ বসতবাড়ীতে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এছাড়াও আমার বড় বোন হাসি খাতুনের বাড়িতে হামলা করে ভাংচুর করে।

এসময় বাধা দিতে গেলে আমার বড় বোন হাসি খাতুন, ভাগ্নে পাভেলসহ পরিবারের ৪ সদস্যকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করে। আহতরা শৈলকুপা হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

গত ১০ আগষ্ট শৈলকুপা পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর ফাজেলপুর গ্রামের মৃত আরা খানের ছেলে মুসা খান (৫০), পাঠানপাড়া গ্রামের মৃত দাউতুল হক খানের ছেলে দাউদ উল হক খান (৫২) ও তার ভাই আরিফুল হক খান পলাশ (৩০), একই গ্রামের তহিদুল খানের ছেলে বিপ্লব খান (২৫)সহ ১০ থেকে ১৫ জন এ হামলা, ভাংচুর ও মারধর করে বলে লিখিত বক্তব্যে উঠে আসে।

বেশ কিছুদিন যাবৎ ৫ নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর মুসা খান রাজনৈতিক প্রতিহিংসার জেরে এ ধরনের কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে বলে জানান এলাকাবাসী। এ ঘটনায় শৈলকুপা থানায় সাধারন ডায়েরী ও একাধিক অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পায়নি।

জেলা রিপোর্টাস ইউনিটির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে
এই সন্ত্রাসীদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে বিচার দাবী করেন শৈলকুপা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রচার সম্পাদক নিলুফা ইয়াসমিন এবং তার ভুক্তভোগী পরিবার।এসময় ঝিনাইদহে কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ বিরতি চুক্তিতে বাধা দেয়ার অভিযোগ

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও বসতবাড়ি ভাংচুরের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

আপডেট সময় : ০৮:০৩:১৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১২ অগাস্ট ২০২৩

ঝিনাইদহে এক পৌর কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান।

শনিবার দুপুরে জেলা রিপোর্টাস ইউনিটির কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলনে শৈলকুপা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নিলুফা ইয়াসমিন ও তার স্ব-পরিবার উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে শৈলকুপা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নিলুফা ইয়াসমিন অভিযোগ করেন,
শৈলকুপা পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের ফাজিলপুরে অবস্থিত নিলুফা প্রি ক্যাডেট এবং নিলুফা প্রতিবন্ধী স্কুলসহ বসতবাড়ীতে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এছাড়াও আমার বড় বোন হাসি খাতুনের বাড়িতে হামলা করে ভাংচুর করে।

এসময় বাধা দিতে গেলে আমার বড় বোন হাসি খাতুন, ভাগ্নে পাভেলসহ পরিবারের ৪ সদস্যকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করে। আহতরা শৈলকুপা হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

গত ১০ আগষ্ট শৈলকুপা পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর ফাজেলপুর গ্রামের মৃত আরা খানের ছেলে মুসা খান (৫০), পাঠানপাড়া গ্রামের মৃত দাউতুল হক খানের ছেলে দাউদ উল হক খান (৫২) ও তার ভাই আরিফুল হক খান পলাশ (৩০), একই গ্রামের তহিদুল খানের ছেলে বিপ্লব খান (২৫)সহ ১০ থেকে ১৫ জন এ হামলা, ভাংচুর ও মারধর করে বলে লিখিত বক্তব্যে উঠে আসে।

বেশ কিছুদিন যাবৎ ৫ নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর মুসা খান রাজনৈতিক প্রতিহিংসার জেরে এ ধরনের কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে বলে জানান এলাকাবাসী। এ ঘটনায় শৈলকুপা থানায় সাধারন ডায়েরী ও একাধিক অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পায়নি।

জেলা রিপোর্টাস ইউনিটির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে
এই সন্ত্রাসীদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে বিচার দাবী করেন শৈলকুপা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রচার সম্পাদক নিলুফা ইয়াসমিন এবং তার ভুক্তভোগী পরিবার।এসময় ঝিনাইদহে কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।