ঢাকা ০২:৩৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সাম্প্রতিক বিস্ফোরণে নাশকতার তথ্য মেলেনি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

গুলিস্তানসহ সম্প্রতি কয়েকটি স্থানে বিস্ফোরণের ঘটনায় এখনো পর্যন্ত কোনো নাশকতা চেষ্টার তথ্য মেলেনি বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।
শনিবার (১১ মার্চ) দুপুরে মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার একটি রিসোর্টে মুন্সিগঞ্জ-বিক্রমপুর সমিতির ৭৫ বছরপূর্তি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নে এ কথা বলেন তিনি।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সম্প্রতি ঘটা বিস্ফোরণের সঙ্গে এখনো পর্যন্ত কোনো নাশকতার প্রচেষ্টা দেখিনি। আমাদের গোয়েন্দা সংস্থা এ পর্যন্ত যে রিপোর্ট দিয়েছে, সেখানে আমরা এখনো পর্যন্ত কোনো নাশকতার প্রচেষ্টা দেখিনি। নাশকতা পরিকল্পনার কোনো সংবাদও আমাদের কাছে আসেনি।
তিনি বলেন, প্রত্যেকটি জায়গায় আমাদের বিশেষজ্ঞ দল, বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট, সেনাবাহিনী ও পুলিশের বিশেষজ্ঞ পর্যবেক্ষক দল কাজ করছে। তারা কোনো বিস্ফোরণে এখনো পর্যন্ত বিস্ফোরকের সন্ধান পাননি। এখনো পর্যন্ত অনুসন্ধান চলছে, আমাদের ধারণা গ্যাস থেকে এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। গুলিস্তানের সিদ্দিক বাজারের ঘটনাটি এমনটাই অনুমান করা হচ্ছে।
আওয়ামী লীগ কোনো চক্রান্তে ভয় পায় না মন্তব্য করে মন্ত্রী বলেন, আমাদের আগামী জাতীয় নির্বাচন হবে ২০২৩ সালের শেষে কিংবা ২০২৪ সালের প্রথমে। আওয়ামী লীগ কখনোই কোনো চক্রান্তে বিশ্বাস করে না। জনগণের ভোট এবং জনগণের সমর্থন নিয়ে আওয়ামী লীগ চলে। কোনো ষড়যন্ত্র কিংবা চক্রান্তকে আমরা ভয় পাই না। এগুলো মোকাবিলা করেই আমরা চলছি।
আসাদুজ্জামান খান বলেন, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ইলেকশনের সময় তাদের প্রোপাগান্ডা বাস্তবায়ন করবে এটাই স্বাভাবিক। বিরোধীদল বলুন কিংবা ভিন্নপথের রাজনীতি বলুন সবাই যার যার কৌশল অবলম্বন করবে। কিন্তু কেউ যদি কোনোরকম বিশৃঙ্খলার চেষ্টা করে তাহলে আমাদের গোয়েন্দা বাহিনী তৎপর রয়েছে। তারা তাদের কাজ করবে।
মুন্সিগঞ্জ-বিক্রমপুর সমিতির সভাপতি অধ্যাপক মনিরুজ্জামান ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে ও মহাসচিব মো. জাহাঙ্গীর আলমের সঞ্চালনায় অন্যদের মধ্যে স্থানীয় সংসদ সদস্য সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী প্রতিমন্ত্রী মিজানুর রহমান সিনহাসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।
দিনভর অনুষ্ঠানে মুন্সিগঞ্জের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার কয়েক হাজার মানুষ অংশ নেন। আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন কর্মসূচিতে মিলনমেলায় পরিণত হয় অনুষ্ঠানস্থল।

আপলোডকারীর তথ্য

নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ বিরতি চুক্তিতে বাধা দেয়ার অভিযোগ

সাম্প্রতিক বিস্ফোরণে নাশকতার তথ্য মেলেনি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট সময় : ০৬:৪০:০৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ মার্চ ২০২৩

গুলিস্তানসহ সম্প্রতি কয়েকটি স্থানে বিস্ফোরণের ঘটনায় এখনো পর্যন্ত কোনো নাশকতা চেষ্টার তথ্য মেলেনি বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।
শনিবার (১১ মার্চ) দুপুরে মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার একটি রিসোর্টে মুন্সিগঞ্জ-বিক্রমপুর সমিতির ৭৫ বছরপূর্তি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নে এ কথা বলেন তিনি।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সম্প্রতি ঘটা বিস্ফোরণের সঙ্গে এখনো পর্যন্ত কোনো নাশকতার প্রচেষ্টা দেখিনি। আমাদের গোয়েন্দা সংস্থা এ পর্যন্ত যে রিপোর্ট দিয়েছে, সেখানে আমরা এখনো পর্যন্ত কোনো নাশকতার প্রচেষ্টা দেখিনি। নাশকতা পরিকল্পনার কোনো সংবাদও আমাদের কাছে আসেনি।
তিনি বলেন, প্রত্যেকটি জায়গায় আমাদের বিশেষজ্ঞ দল, বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট, সেনাবাহিনী ও পুলিশের বিশেষজ্ঞ পর্যবেক্ষক দল কাজ করছে। তারা কোনো বিস্ফোরণে এখনো পর্যন্ত বিস্ফোরকের সন্ধান পাননি। এখনো পর্যন্ত অনুসন্ধান চলছে, আমাদের ধারণা গ্যাস থেকে এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। গুলিস্তানের সিদ্দিক বাজারের ঘটনাটি এমনটাই অনুমান করা হচ্ছে।
আওয়ামী লীগ কোনো চক্রান্তে ভয় পায় না মন্তব্য করে মন্ত্রী বলেন, আমাদের আগামী জাতীয় নির্বাচন হবে ২০২৩ সালের শেষে কিংবা ২০২৪ সালের প্রথমে। আওয়ামী লীগ কখনোই কোনো চক্রান্তে বিশ্বাস করে না। জনগণের ভোট এবং জনগণের সমর্থন নিয়ে আওয়ামী লীগ চলে। কোনো ষড়যন্ত্র কিংবা চক্রান্তকে আমরা ভয় পাই না। এগুলো মোকাবিলা করেই আমরা চলছি।
আসাদুজ্জামান খান বলেন, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ইলেকশনের সময় তাদের প্রোপাগান্ডা বাস্তবায়ন করবে এটাই স্বাভাবিক। বিরোধীদল বলুন কিংবা ভিন্নপথের রাজনীতি বলুন সবাই যার যার কৌশল অবলম্বন করবে। কিন্তু কেউ যদি কোনোরকম বিশৃঙ্খলার চেষ্টা করে তাহলে আমাদের গোয়েন্দা বাহিনী তৎপর রয়েছে। তারা তাদের কাজ করবে।
মুন্সিগঞ্জ-বিক্রমপুর সমিতির সভাপতি অধ্যাপক মনিরুজ্জামান ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে ও মহাসচিব মো. জাহাঙ্গীর আলমের সঞ্চালনায় অন্যদের মধ্যে স্থানীয় সংসদ সদস্য সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী প্রতিমন্ত্রী মিজানুর রহমান সিনহাসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।
দিনভর অনুষ্ঠানে মুন্সিগঞ্জের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার কয়েক হাজার মানুষ অংশ নেন। আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন কর্মসূচিতে মিলনমেলায় পরিণত হয় অনুষ্ঠানস্থল।