ঢাকা ০২:৪৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরসহ প্রশাসনের ১৭ জনের পদত্যাগ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) বিভিন্ন প্রশাসনিক পদে দায়িত্বরতদের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরসহ মোট ১৭ জন পদত্যাগ করেছেন।
রবিবার (১২ মার্চ) দুপুর দেড়টার দিকে ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার কে এম নূর আহমদের নিকট পদত্যাগ পত্র জমা দেন তারা। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম নির্বিঘ্নে চালিয়ে যেতে এরই মধ্যে ইনস্টিটিউট অব মেরিন সায়েন্সেসের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ নূরুল আজিম সিকদারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত প্রক্টর হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।
পদত্যাগকারী এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ড. শহিদুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে বলেন, আমি আমার ব্যাক্তিগত কারনে পদত্যাগ করেছি। তবে এর চেয়ে বেশি কিছু বলতে আমি এই মুহূর্তে ইচ্ছুক না।
বিষয়টি নিশ্চিত করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার কে এম নূর আহমেদ কালের কণ্ঠকে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দায়িত্বরত ১৭ জন পদত্যাগ করেছেন। তাদের মধ্যে প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যসংখ্যা ৬ জন, বিভিন্ন হলের প্রভোস্ট ও আবাসিক শিক্ষক ১০ জন, ও আইকিউএসির একজন। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম নির্বিঘ্নে চালিয়ে যেতে ইতিমধ্যে একজনকে প্রক্টর হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

আপলোডকারীর তথ্য

নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ বিরতি চুক্তিতে বাধা দেয়ার অভিযোগ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরসহ প্রশাসনের ১৭ জনের পদত্যাগ

আপডেট সময় : ০৭:৩০:২৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ১২ মার্চ ২০২৩

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) বিভিন্ন প্রশাসনিক পদে দায়িত্বরতদের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরসহ মোট ১৭ জন পদত্যাগ করেছেন।
রবিবার (১২ মার্চ) দুপুর দেড়টার দিকে ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার কে এম নূর আহমদের নিকট পদত্যাগ পত্র জমা দেন তারা। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম নির্বিঘ্নে চালিয়ে যেতে এরই মধ্যে ইনস্টিটিউট অব মেরিন সায়েন্সেসের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ নূরুল আজিম সিকদারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত প্রক্টর হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।
পদত্যাগকারী এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ড. শহিদুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে বলেন, আমি আমার ব্যাক্তিগত কারনে পদত্যাগ করেছি। তবে এর চেয়ে বেশি কিছু বলতে আমি এই মুহূর্তে ইচ্ছুক না।
বিষয়টি নিশ্চিত করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার কে এম নূর আহমেদ কালের কণ্ঠকে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দায়িত্বরত ১৭ জন পদত্যাগ করেছেন। তাদের মধ্যে প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যসংখ্যা ৬ জন, বিভিন্ন হলের প্রভোস্ট ও আবাসিক শিক্ষক ১০ জন, ও আইকিউএসির একজন। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম নির্বিঘ্নে চালিয়ে যেতে ইতিমধ্যে একজনকে প্রক্টর হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।