ঢাকা ০২:২৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গায় খাদ্য গুদামে গমের ট্রাকে গমের পরিবর্তে বালুর বস্তা, আটক ৩

চুয়াডাঙ্গার খাদ্য গুদামে গমের ট্রাকে বালুর বস্তা পাওয়ার ঘটনায় তিন ট্রাক হেলপারকে আটক করা হয়েছে। ট্রাক থেকে গম নামানোর পর ৩ টন ৭৭১ কেজি গম কম পাওয়া গেছে। এ ঘটনা তদন্তের জন্য এরইমধ্যে জেলা খাদ্য বিভাগ ও জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা তদন্ত শুরু করেছেন বলেও জানা গেছে।
সোমবার (৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে ওই ৩ হেলপারকে আটক দেখানো হয়। তবে পালিয়ে গেছে ৬ ট্রাকের চালক ও অন্য হেলপাররা।
সোমবার বিকেলে তদন্ত কমিটির সদস্যরা চুয়াডাঙ্গা সদর খাদ্য গুদাম পরিদর্শন করেন। এ সময় তারা কথা বলেন খাদ্য গুদামের কর্মকর্তাদের সাথে। জিজ্ঞাসাবাদ করেন ট্রাকের হেলপারদের। এ সময় তিন ট্রাক হেলপারকে আটক করার নির্দেশ দেয়া হয়।
তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) নাজমুল হামিদ রেজা জানান, তদন্ত শুরু হয়েছে। তিন হেলপারকে আটক দেখানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, ট্রাক চালক-হেলপাররা এ কারসাজিতে জড়িত। তদন্তের পর বিস্তারিত জানানো হবে।
চুয়াডাঙ্গা সদর খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান, ৬টি ট্রাক থেকে সব গম নামানো হয়েছে। এরমধ্যে ৩টন ৭৭১ কেজি গম কম পাওয়া গেছে। আর ওই ট্রাক থেকে উদ্ধার করা বালুর পরিমাণ ১ হাজার ৪৮৮ কেজি।
চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আনিসুজ্জামান জানান, গত রাতে খাদ্য গুদামে ট্রাক ফেলে চালক ও হেলপাররা পালিয়েছে। তবে তিন হেলপার পালাতে না পারায় তাদেরকে আটক দেখানো হয়েছে। হেফাজতে নেয়া হয়েছে ৬টি ট্রাক। এ ঘটনায় খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন।
উল্লেখ্য, রোববার (৫ ফেব্রুয়ারি) খুলনা থেকে চুয়াডাঙ্গা খাদ্য গুদামে এসে পৌঁছায় গমভর্তি ৬টি ট্রাক। ওই ট্রাক থেকে গম নামানোর সময় ২৮ বস্তা বালু ও ৪ টুকরো পাথরের অস্তিত্ব পাওয়া যায়। এরপরই শুরু হয় তোলপাড়।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ বিরতি চুক্তিতে বাধা দেয়ার অভিযোগ

চুয়াডাঙ্গায় খাদ্য গুদামে গমের ট্রাকে গমের পরিবর্তে বালুর বস্তা, আটক ৩

আপডেট সময় : ০৭:৫০:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

চুয়াডাঙ্গার খাদ্য গুদামে গমের ট্রাকে বালুর বস্তা পাওয়ার ঘটনায় তিন ট্রাক হেলপারকে আটক করা হয়েছে। ট্রাক থেকে গম নামানোর পর ৩ টন ৭৭১ কেজি গম কম পাওয়া গেছে। এ ঘটনা তদন্তের জন্য এরইমধ্যে জেলা খাদ্য বিভাগ ও জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা তদন্ত শুরু করেছেন বলেও জানা গেছে।
সোমবার (৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে ওই ৩ হেলপারকে আটক দেখানো হয়। তবে পালিয়ে গেছে ৬ ট্রাকের চালক ও অন্য হেলপাররা।
সোমবার বিকেলে তদন্ত কমিটির সদস্যরা চুয়াডাঙ্গা সদর খাদ্য গুদাম পরিদর্শন করেন। এ সময় তারা কথা বলেন খাদ্য গুদামের কর্মকর্তাদের সাথে। জিজ্ঞাসাবাদ করেন ট্রাকের হেলপারদের। এ সময় তিন ট্রাক হেলপারকে আটক করার নির্দেশ দেয়া হয়।
তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) নাজমুল হামিদ রেজা জানান, তদন্ত শুরু হয়েছে। তিন হেলপারকে আটক দেখানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, ট্রাক চালক-হেলপাররা এ কারসাজিতে জড়িত। তদন্তের পর বিস্তারিত জানানো হবে।
চুয়াডাঙ্গা সদর খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান, ৬টি ট্রাক থেকে সব গম নামানো হয়েছে। এরমধ্যে ৩টন ৭৭১ কেজি গম কম পাওয়া গেছে। আর ওই ট্রাক থেকে উদ্ধার করা বালুর পরিমাণ ১ হাজার ৪৮৮ কেজি।
চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আনিসুজ্জামান জানান, গত রাতে খাদ্য গুদামে ট্রাক ফেলে চালক ও হেলপাররা পালিয়েছে। তবে তিন হেলপার পালাতে না পারায় তাদেরকে আটক দেখানো হয়েছে। হেফাজতে নেয়া হয়েছে ৬টি ট্রাক। এ ঘটনায় খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন।
উল্লেখ্য, রোববার (৫ ফেব্রুয়ারি) খুলনা থেকে চুয়াডাঙ্গা খাদ্য গুদামে এসে পৌঁছায় গমভর্তি ৬টি ট্রাক। ওই ট্রাক থেকে গম নামানোর সময় ২৮ বস্তা বালু ও ৪ টুকরো পাথরের অস্তিত্ব পাওয়া যায়। এরপরই শুরু হয় তোলপাড়।