১০:১৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে নিখোঁজের ৫ দিন পর ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার

চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে নিখোঁজের ৫ দিন পর উপজেলার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ইয়ান সু স্টোরের স্বত্বাধিকারী মো.আবু সাঈদের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার ৬ই এপ্রিল সকালে জীবননগর আঁশতলা পাড়ার একটি নির্মাণাধীন ৭ তলা ভবনের লিফটের বেজমেন্ট থেকে আবু সাইদ এর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
নিহত আবু সাইদ (২৭) জীবননগর পৌরসভার হাইস্কুল পাড়ার মো.রইস এর পুত্র। নিহত আবু সাইদ জীবননগর শহরে জুতার ব্যবসা করেন।
পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, আবু সাইদ গত ২ তারিখ রবিবার সেহরী খাওয়া শেষ করে নামাজ পড়ার উদ্দেশ্যে মসজিদের দিকে রওনা হন। পরবর্তীতে সে আর বাসায় ফেরেনি এবং তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। এরপর পারিবারের লোকজন থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরি করেন।
নিহতের বড় ভাই হাসান বলেন, নিখোঁজের একদিন পর নিহত আবু সাইদ এর ফোন থেকে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি আমার কাছে কল দিয়ে ১৫ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। ১৫ হাজার টাকা দিলে সাইদের খোঁজ দেবে বলে জানানো হয়। টাকা না দিলে তার খোঁজ পাওয়া যাবে না বলে জানানো হয়।
এরপর আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় জীবননগর পৌর এলাকায় ৮ নং ওয়ার্ডের বসতি পাড়ায় একটি সাত তলা বিশিষ্ট নির্মাণাধীন বাড়ির লিফটের নিচ তলায় ট্যাংকির ভিতরে আবু সাঈদের লাশ খুঁজে পাওয়া যায়।
জীবননগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাসির উদ্দীন মৃধা জানান, নিখোঁজ ব্যবসায়ী আবু সাইদ (২৭)এর মরদেহ শনাক্ত করেছেন পরিবারের সদস্যরা।শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা লাশ উদ্ধার কাজে নিয়োজিত ছিলো।তদন্ত করে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে নিখোঁজের ৫ দিন পর ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার

প্রকাশ : ০১:১৮:৪৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ এপ্রিল ২০২৩

চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে নিখোঁজের ৫ দিন পর উপজেলার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ইয়ান সু স্টোরের স্বত্বাধিকারী মো.আবু সাঈদের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার ৬ই এপ্রিল সকালে জীবননগর আঁশতলা পাড়ার একটি নির্মাণাধীন ৭ তলা ভবনের লিফটের বেজমেন্ট থেকে আবু সাইদ এর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
নিহত আবু সাইদ (২৭) জীবননগর পৌরসভার হাইস্কুল পাড়ার মো.রইস এর পুত্র। নিহত আবু সাইদ জীবননগর শহরে জুতার ব্যবসা করেন।
পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, আবু সাইদ গত ২ তারিখ রবিবার সেহরী খাওয়া শেষ করে নামাজ পড়ার উদ্দেশ্যে মসজিদের দিকে রওনা হন। পরবর্তীতে সে আর বাসায় ফেরেনি এবং তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। এরপর পারিবারের লোকজন থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরি করেন।
নিহতের বড় ভাই হাসান বলেন, নিখোঁজের একদিন পর নিহত আবু সাইদ এর ফোন থেকে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি আমার কাছে কল দিয়ে ১৫ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। ১৫ হাজার টাকা দিলে সাইদের খোঁজ দেবে বলে জানানো হয়। টাকা না দিলে তার খোঁজ পাওয়া যাবে না বলে জানানো হয়।
এরপর আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় জীবননগর পৌর এলাকায় ৮ নং ওয়ার্ডের বসতি পাড়ায় একটি সাত তলা বিশিষ্ট নির্মাণাধীন বাড়ির লিফটের নিচ তলায় ট্যাংকির ভিতরে আবু সাঈদের লাশ খুঁজে পাওয়া যায়।
জীবননগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাসির উদ্দীন মৃধা জানান, নিখোঁজ ব্যবসায়ী আবু সাইদ (২৭)এর মরদেহ শনাক্ত করেছেন পরিবারের সদস্যরা।শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা লাশ উদ্ধার কাজে নিয়োজিত ছিলো।তদন্ত করে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।