ঢাকা ০৭:২৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যুবলীগের বহিষ্কৃত নেতা সম্রাটের’ জামিনের মেয়াদ ১৫ মে পর্যন্ত বাড়ল

অর্থ পাচার মামলায় ঢাকার ক্যাসিনো ব্যবসার মূলহোতা হিসেবে পরিচিত যুবলীগের বহিষ্কৃত নেতা ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটের জামিনের মেয়াদ আগামী ১৫ মে পর্যন্ত বাড়িয়েছেন আদালত।
রোববার সকালে আইনজীবী আফরোজা শাহানাজ পারভীন সম্রাটের পক্ষে জামিনের মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করেন। শুনানি শেষে ঢাকা-৬ বিশেষ আদালতের বিচারক (ভারপ্রাপ্ত) মনির কামাল আবেদন মঞ্জুর করেন।
সম্রাটের আইনজীবী অভিযোগ গঠন শুনানি পেছানোর পৃথক আবেদন করেন। এ সময় সম্রাট আদালতে উপস্থিত ছিলেন।
গত ২২ আগস্ট একই আদালত সম্রাটের শারীরিক অবস্থা বিবেচনায় নিয়ে তাকে অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেন। আদেশে উল্লেখ ছিল, সম্রাটকে তার পাসপোর্ট জমা দিতে হবে। আর জামিনের মেয়াদ হবে মামলার পরবর্তী শুনানির তারিখ পর্যন্ত।
জামিন আদেশের পরে তাকে চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উপপরিচালক জাহাঙ্গীর আলম ও এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ২০২০ সালের ৭ ডিসেম্বর ঢাকার সিনিয়র স্পেশাল আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন।
র‌্যাবের ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে ২০১৯ সালের ৬ অক্টোবর কুমিল্লা থেকে সম্রাট ও তার সহযোগী এনামুল হক আরমানকে আটক করা হয়। ওই অভিযানে যুবলীগের বহিষ্কৃত নেতা খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া, বিতর্কিত ঠিকাদার জি কে শামীমসহ মোট ১৩ জন গ্রেফতার হন।
তার বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া ৪টি মামলায় চলতি বছর জামিন পান সম্রাট। তবে এক সপ্তাহ পরে ১৮ মে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় হাইকোর্ট তার জামিন বাতিল করে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেন। পরে ২২ আগস্ট তিনি ওই মামলায় জামিন পান।

আপলোডকারীর তথ্য

নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ বিরতি চুক্তিতে বাধা দেয়ার অভিযোগ

যুবলীগের বহিষ্কৃত নেতা সম্রাটের’ জামিনের মেয়াদ ১৫ মে পর্যন্ত বাড়ল

আপডেট সময় : ০১:১৫:২৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ৯ এপ্রিল ২০২৩

অর্থ পাচার মামলায় ঢাকার ক্যাসিনো ব্যবসার মূলহোতা হিসেবে পরিচিত যুবলীগের বহিষ্কৃত নেতা ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটের জামিনের মেয়াদ আগামী ১৫ মে পর্যন্ত বাড়িয়েছেন আদালত।
রোববার সকালে আইনজীবী আফরোজা শাহানাজ পারভীন সম্রাটের পক্ষে জামিনের মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করেন। শুনানি শেষে ঢাকা-৬ বিশেষ আদালতের বিচারক (ভারপ্রাপ্ত) মনির কামাল আবেদন মঞ্জুর করেন।
সম্রাটের আইনজীবী অভিযোগ গঠন শুনানি পেছানোর পৃথক আবেদন করেন। এ সময় সম্রাট আদালতে উপস্থিত ছিলেন।
গত ২২ আগস্ট একই আদালত সম্রাটের শারীরিক অবস্থা বিবেচনায় নিয়ে তাকে অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেন। আদেশে উল্লেখ ছিল, সম্রাটকে তার পাসপোর্ট জমা দিতে হবে। আর জামিনের মেয়াদ হবে মামলার পরবর্তী শুনানির তারিখ পর্যন্ত।
জামিন আদেশের পরে তাকে চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উপপরিচালক জাহাঙ্গীর আলম ও এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ২০২০ সালের ৭ ডিসেম্বর ঢাকার সিনিয়র স্পেশাল আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন।
র‌্যাবের ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে ২০১৯ সালের ৬ অক্টোবর কুমিল্লা থেকে সম্রাট ও তার সহযোগী এনামুল হক আরমানকে আটক করা হয়। ওই অভিযানে যুবলীগের বহিষ্কৃত নেতা খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া, বিতর্কিত ঠিকাদার জি কে শামীমসহ মোট ১৩ জন গ্রেফতার হন।
তার বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া ৪টি মামলায় চলতি বছর জামিন পান সম্রাট। তবে এক সপ্তাহ পরে ১৮ মে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় হাইকোর্ট তার জামিন বাতিল করে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেন। পরে ২২ আগস্ট তিনি ওই মামলায় জামিন পান।