ঢাকা ১২:০৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বুলগেরিয়ায় পরিত্যক্ত ট্রাক থেকে ১৮ লাশ উদ্ধার

বুলগেরিয়ায় একটি পরিত্যক্ত ট্রাক থেকে ১৮ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত লাশগুলোর মধ্যে এক শিশুও রয়েছে। এছাড়া এ ঘটনায় আরও বেশ কয়েকজনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে।
শুক্রবার বুলগেরিয়ার রাজধানী সোফিয়া থেকে ১২ মাইল (২০ কিমি) উত্তর-পূর্বে অবস্থিত লোকরস্কো গ্রামের কাছে পরিত্যক্ত ওই ট্রাকটি খুঁজে পাওয়া যায়। খবর বিবিসির।
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পরিত্যক্ত ওই গাড়িটি প্রায় ৪০ অভিবাসীকে অবৈধভাবে পরিবহণ করছিল বলে মনে করা হচ্ছে। এই ঘটনায় উদ্ধারকৃত জীবিতদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।
প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, পরিত্যক্ত ওই ট্রাকের লোকেরা ঠাণ্ডা, ভেজা অবস্থায় ছিল এবং তারা কয়েকদিন ধরে কিছুই খায়নি বলে জানিয়েছেন বুলগেরিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী। এটিকে বুলগেরিয়ায় অভিবাসীদের সঙ্গে সম্পর্কিত সবচেয়ে মারাত্মক ঘটনা বলে মনে করা হচ্ছে।
তুরস্ক থেকে বিপুল সংখ্যক লোক ইউরোপীয় ইউনিয়নে প্রবেশের চেষ্টা করে থাকেন। এ কাজে তারা রুট হিসেবে বুলগেরিয়াকে ব্যবহার করে থাকে। আর তাই বুলগেরিয়া দীর্ঘদিন ধরে তুরস্ক থেকে ইউরোপীয় ইউনিয়নে প্রবেশের চেষ্টাকারী বিপুল সংখ্যক লোককে ঠেকাতে কার্যত লড়াই করছে।
এই ট্রাকটি কাঠের নিচে লুকিয়ে থাকা অভিবাসীদের অবৈধভাবে পরিবহণ করছিল বলে বলকান এই রাষ্ট্রটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে।
বুলগেরিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী আসান মেদঝিদিভ ট্রাকের ভেতরের অবস্থা বর্ণনা করে বলেছেন: ‘এই ট্রাকে তালাবদ্ধ অবস্থায় থাকা ব্যক্তিরা অক্সিজেনের সংকটে ছিল। ঠাণ্ডায় তারা জমে ছিলেন, ভেজা অবস্থায় ছিলেন, তারা বেশ কয়েক দিন ধরে খায়নি।
ট্রাকে জীবিত অবস্থায় খুঁজে পাওয়া যায় ১৪ জনকে। তাদের মধ্যে আটজনের অবস্থা গুরুতর এবং পরে তাদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এছাড়া আরও ১০ জনকে আশপাশে লুকিয়ে থাকা অবস্থায় পাওয়া গেছে এবং পরীক্ষার জন্য তাদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হবে বলেও জানিয়েছেন আসান মেদঝিদিভ।
পুলিশ মানব পাচারকারীদের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।
আশ্রয়প্রার্থীদের অভিযোগ, দেশটিতে প্রবেশের চেষ্টার সময় তাদের আটকে দেওয়া ও গ্রেফতার করা হয়েছে। এমনকি আশ্রয়প্রার্থীদের মালামাল কেড়ে নেওয়া এবং মারধর করার অভিযোগের সম্মুখীনও হয়েছে বুলগেরিয়া।

আপলোডকারীর তথ্য

নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ বিরতি চুক্তিতে বাধা দেয়ার অভিযোগ

বুলগেরিয়ায় পরিত্যক্ত ট্রাক থেকে ১৮ লাশ উদ্ধার

আপডেট সময় : ০৯:১৩:০০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

বুলগেরিয়ায় একটি পরিত্যক্ত ট্রাক থেকে ১৮ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত লাশগুলোর মধ্যে এক শিশুও রয়েছে। এছাড়া এ ঘটনায় আরও বেশ কয়েকজনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে।
শুক্রবার বুলগেরিয়ার রাজধানী সোফিয়া থেকে ১২ মাইল (২০ কিমি) উত্তর-পূর্বে অবস্থিত লোকরস্কো গ্রামের কাছে পরিত্যক্ত ওই ট্রাকটি খুঁজে পাওয়া যায়। খবর বিবিসির।
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পরিত্যক্ত ওই গাড়িটি প্রায় ৪০ অভিবাসীকে অবৈধভাবে পরিবহণ করছিল বলে মনে করা হচ্ছে। এই ঘটনায় উদ্ধারকৃত জীবিতদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।
প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, পরিত্যক্ত ওই ট্রাকের লোকেরা ঠাণ্ডা, ভেজা অবস্থায় ছিল এবং তারা কয়েকদিন ধরে কিছুই খায়নি বলে জানিয়েছেন বুলগেরিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী। এটিকে বুলগেরিয়ায় অভিবাসীদের সঙ্গে সম্পর্কিত সবচেয়ে মারাত্মক ঘটনা বলে মনে করা হচ্ছে।
তুরস্ক থেকে বিপুল সংখ্যক লোক ইউরোপীয় ইউনিয়নে প্রবেশের চেষ্টা করে থাকেন। এ কাজে তারা রুট হিসেবে বুলগেরিয়াকে ব্যবহার করে থাকে। আর তাই বুলগেরিয়া দীর্ঘদিন ধরে তুরস্ক থেকে ইউরোপীয় ইউনিয়নে প্রবেশের চেষ্টাকারী বিপুল সংখ্যক লোককে ঠেকাতে কার্যত লড়াই করছে।
এই ট্রাকটি কাঠের নিচে লুকিয়ে থাকা অভিবাসীদের অবৈধভাবে পরিবহণ করছিল বলে বলকান এই রাষ্ট্রটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে।
বুলগেরিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী আসান মেদঝিদিভ ট্রাকের ভেতরের অবস্থা বর্ণনা করে বলেছেন: ‘এই ট্রাকে তালাবদ্ধ অবস্থায় থাকা ব্যক্তিরা অক্সিজেনের সংকটে ছিল। ঠাণ্ডায় তারা জমে ছিলেন, ভেজা অবস্থায় ছিলেন, তারা বেশ কয়েক দিন ধরে খায়নি।
ট্রাকে জীবিত অবস্থায় খুঁজে পাওয়া যায় ১৪ জনকে। তাদের মধ্যে আটজনের অবস্থা গুরুতর এবং পরে তাদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এছাড়া আরও ১০ জনকে আশপাশে লুকিয়ে থাকা অবস্থায় পাওয়া গেছে এবং পরীক্ষার জন্য তাদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হবে বলেও জানিয়েছেন আসান মেদঝিদিভ।
পুলিশ মানব পাচারকারীদের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।
আশ্রয়প্রার্থীদের অভিযোগ, দেশটিতে প্রবেশের চেষ্টার সময় তাদের আটকে দেওয়া ও গ্রেফতার করা হয়েছে। এমনকি আশ্রয়প্রার্থীদের মালামাল কেড়ে নেওয়া এবং মারধর করার অভিযোগের সম্মুখীনও হয়েছে বুলগেরিয়া।