ঢাকা ১২:১৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঢাকা বারের নির্বাচনে বিএনপিপন্থি নীল প্যানেলের ভোট বর্জন

দেশের সর্ববৃহৎ বার ঢাকা আইনজীবী সমিতির ২০২৩-২০২৪ কার্যনির্বাহী পরিষদ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপিপন্থি নীল প্যানেলের প্রার্থীরা।
বুধবার (২২ ফেব্রুয়ারি) ১ম দিনের ভোট গ্রহণ শেষে রাতে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন নীল প্যানেলের মনোনীত সভাপতি প্রার্থী খোরশেদ মিয়া আলম ও সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ নজরুল ইসলাম।
এসময় নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ আনেন তারা। একইসঙ্গে নির্বাচন কমিশনের প্রতি অনাস্থা জ্ঞাপন করেন। এছাড়া আগামীকালের ভোট বর্জন করে অন্যান্য ভোটারদের ভোটদান থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানান।
দুই দিনব্যাপী এ নির্বাচনের প্রথম দিনের ভোটগ্রহণ করাহয়বুধবার। এদিন সকাল ৯টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে এক ঘণ্টার জন্য বিরতি দিয়ে চলে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। ১৯ হাজার ৬১৮ ভোটারের মধ্যে ৫০২৮ জন আইনজীবী তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন বলে জানান নির্বাচন কমিশনার অ্যাডভোকেট আহসান হাবীব।
আইনজীবী সমিতির কার্যকরী কমিটির ২৩টি পদের বিপরীতে বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত নীল প্যানেলের ২৩ জন এবং আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাদা প্যানেলের ২৩ জন করে মোট ৪৬ জন প্রার্থী হন।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ বিরতি চুক্তিতে বাধা দেয়ার অভিযোগ

ঢাকা বারের নির্বাচনে বিএনপিপন্থি নীল প্যানেলের ভোট বর্জন

আপডেট সময় : ১১:০৯:৫০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

দেশের সর্ববৃহৎ বার ঢাকা আইনজীবী সমিতির ২০২৩-২০২৪ কার্যনির্বাহী পরিষদ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপিপন্থি নীল প্যানেলের প্রার্থীরা।
বুধবার (২২ ফেব্রুয়ারি) ১ম দিনের ভোট গ্রহণ শেষে রাতে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন নীল প্যানেলের মনোনীত সভাপতি প্রার্থী খোরশেদ মিয়া আলম ও সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ নজরুল ইসলাম।
এসময় নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ আনেন তারা। একইসঙ্গে নির্বাচন কমিশনের প্রতি অনাস্থা জ্ঞাপন করেন। এছাড়া আগামীকালের ভোট বর্জন করে অন্যান্য ভোটারদের ভোটদান থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানান।
দুই দিনব্যাপী এ নির্বাচনের প্রথম দিনের ভোটগ্রহণ করাহয়বুধবার। এদিন সকাল ৯টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে এক ঘণ্টার জন্য বিরতি দিয়ে চলে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। ১৯ হাজার ৬১৮ ভোটারের মধ্যে ৫০২৮ জন আইনজীবী তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন বলে জানান নির্বাচন কমিশনার অ্যাডভোকেট আহসান হাবীব।
আইনজীবী সমিতির কার্যকরী কমিটির ২৩টি পদের বিপরীতে বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত নীল প্যানেলের ২৩ জন এবং আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাদা প্যানেলের ২৩ জন করে মোট ৪৬ জন প্রার্থী হন।