১০:৫২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রক্টরের অপসারণের দাবিতে কুবি ছাত্রলীগের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) ছাত্রলীগের তিন নেতাকে মারধরের প্রতিবাদে ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের অপসারণের দাবিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম রোডে অবরোধ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।
বুধবার (৮ মার্চ) বিকাল ৫টায় বিশ্ববিদ্যালয় গেইট সংলগ্ন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে অবরোধ করেন। এসময় তারা দোষীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানায় এবং শ্লোগানে শ্লোগানে প্রক্টরের অপসারণের দাবি করেন।
শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ‘সুষ্ঠু বিচার করিয়ে দে, না হয় গদি ছাড়ায় দে’, ‘প্রক্টরের দূর্নীতি মানিনা না মানব না’, ‘প্রক্টরের কালো হাত ভেঙে দাও, এক দফা এক দাবি প্রক্টরের পদত্যাগ চাই’ আমার ভাই আহত কেন, প্রশাসন জবাব চাই’ শ্লোগানে প্রতিবাদ করেন।
এর আগে দুপুরে বুধবার (৮ মার্চ) বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন আল আমিনের দোকানের সামনে ছাত্রলীগের তিন নেতাকে প্রকাশ্যে মারধর করে গুরুতর আহত করেছে ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রেজা-ই-এলাহী সমর্থিত স্থানীয় যুবদল নেতা রনি, হত্যা মামলার আসামী বিপ্লব চন্দ্র দাস, স্বজন বরণ বিশ্বাসসহ ১২ থেকে ১৫ জন কর্মী।
এতে গুরুতর আহত হন শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত হলের সাধারণ সম্পাদক এনায়েত উল্লাহ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সালমান হৃদয়, বিজ্ঞান অনুষদ ছাত্রলীগের সহসভাপতি সাইদুল ইসলাম রোহান।

প্রক্টরের অপসারণের দাবিতে কুবি ছাত্রলীগের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ

প্রকাশ : ০৬:১৫:০৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ৮ মার্চ ২০২৩

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) ছাত্রলীগের তিন নেতাকে মারধরের প্রতিবাদে ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের অপসারণের দাবিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম রোডে অবরোধ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।
বুধবার (৮ মার্চ) বিকাল ৫টায় বিশ্ববিদ্যালয় গেইট সংলগ্ন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে অবরোধ করেন। এসময় তারা দোষীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানায় এবং শ্লোগানে শ্লোগানে প্রক্টরের অপসারণের দাবি করেন।
শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ‘সুষ্ঠু বিচার করিয়ে দে, না হয় গদি ছাড়ায় দে’, ‘প্রক্টরের দূর্নীতি মানিনা না মানব না’, ‘প্রক্টরের কালো হাত ভেঙে দাও, এক দফা এক দাবি প্রক্টরের পদত্যাগ চাই’ আমার ভাই আহত কেন, প্রশাসন জবাব চাই’ শ্লোগানে প্রতিবাদ করেন।
এর আগে দুপুরে বুধবার (৮ মার্চ) বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন আল আমিনের দোকানের সামনে ছাত্রলীগের তিন নেতাকে প্রকাশ্যে মারধর করে গুরুতর আহত করেছে ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রেজা-ই-এলাহী সমর্থিত স্থানীয় যুবদল নেতা রনি, হত্যা মামলার আসামী বিপ্লব চন্দ্র দাস, স্বজন বরণ বিশ্বাসসহ ১২ থেকে ১৫ জন কর্মী।
এতে গুরুতর আহত হন শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত হলের সাধারণ সম্পাদক এনায়েত উল্লাহ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সালমান হৃদয়, বিজ্ঞান অনুষদ ছাত্রলীগের সহসভাপতি সাইদুল ইসলাম রোহান।