ঢাকা ০১:০০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গায় জমি নিয়ে বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ৫, দুই জনের অবস্থা আশংকাজনক

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার জুড়ানপুর ইউনিয়নের ইব্রাহিমপুরে চাচাতো ভাইদের সাথে জমি জমা নিয়ে বিরোধের জেরে একই পরিবারের ৫ জনকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে। পরিবারের সবাই চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছে প্রত্যেকের শরীরে একাধিক সেলাই দেয়া হয়েছে হয়েছে। সেই সাথে দুইজনের হাত এবং পা ভেঙ্গে গেছে। আর দুজনের অবস্থা আশংকাজনক। আহতরা হলেন ইব্রাহিমপুর গ্রামের মৃত রবিউল জোয়ার্দারের দুই ছেলে ইয়ারুল জোয়ার্দার (৫২) ও জিনারুল জোয়ার্দার (৪৭)।এবং জিনারুলের জোয়ার্দারের ছেলে রোকন জোয়ার্দার (২৩)। এছাড়াও সাইদান জোয়ার্দারের ছেলে রাজন জোয়ার্দার (৩৫)। আহত ইয়ারুলের ছেলে আসাদুজ্জামান আসাদ (২৪)। একই পরিবারের ৫ জন আহত হয়ে হাসপাতালে। প্রত্যেকেই মর্মান্তিক ভাবে রক্তাক্ত ও জখম। প্রত্যেকের শরীরে একাধিক সেলাই করা হয়েছে। হাত পা ভেঙ্গে যাওয়া সহ আঙ্গুল কেটে পড়ে গেছে তাদের দুইজনের। ঘটনাটি ঘটে গত ২ মে মঙ্গলবার দুপুর ১২ টার সময়। আহত ইয়ারুল সাংবাদিকদের কে বলেন,
আমার চাচাতো ভাইয়ের পরিবারের লোকজন শক্তিশালী এবং ক্ষমতাবান হওয়ায় দীর্ঘদিন আমরা নির্যাতিত নিপিড়ীত। বাপ দাদার প্রায় ১৫ বিঘা জমি তারা জোরপুর্বক ভুয়া দলিল করে দখল করে খাচ্ছে। আবার আমাদের উপর এভাবে আক্রমন করছে। তিনি আরো বলেন লাল মোহাম্মদের দুই ছেলে রকি (৩০) ও রবিন (২৫)। মৃত লুৎফর জোয়ার্দারের তিন ছেলে মিলন জোয়ার্দার (৫৫), লাল মুহাম্মদ (৫০) ও শিল্টু জোয়ারদার। এদের হাতে থাকা ধারালো দা, হাসুয়া ও লাটির আক্রমনের শিকার আমরা সবাই। তারা আমাদের কে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করেছে।
স্থানীয় জনসাধারণ তাদের কে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। স্থানীয় লোকজন সাংবাদিকদের জানান দির্ঘদিন তাদের মাঝে জমি জমা নিয়ে ঝামেলা রয়েছে পারিবারিক ভাবে তাদের মাঝে কলোহ বাধতেই থাকে। একাধিকবার স্থানীয় ভাবে গ্রামে, থানায়, এসপি অফিসে বসার পরেও কোন সমাধান হয়নি। জমি জমার বিষয় নিয়ে দুই পক্ষের বেশ কয়েকটি মামলা ও চলমান রয়েছে আদালতে। তবে এভাবে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করা কে এলাকাবাসী নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে সুষ্ঠু বিচার দাবী করেন। চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট সার্জারী ডাক্তার ওয়ালিউর রহমান নয়ন বলেন, তাদের চিকিৎসা চলছে, তারা অনেকটা আশংকা মুক্ত। আশা করা যায় এই হাসপাতালের চিকিৎসায় তাদের কে সুস্থ করে তোলা যাবে তবে সময় লাগবে। আহত আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন তার মটর সাইকেল ভেঙ্গে দেয়া হয়েছে। এবং দোকানের দুই সেট চাবিসহ ৩৫০০০ টাকার একটি ব্যাগ সেখানে পড়ে গেলে তা খুজে পাইনি। তবে ওরাই নিয়েছে বলে তিনি জানান।
দামুড়হুদা থানা অফিসার ইনচার্জ ছুটিতে থাকায় ইন্সপেক্টর তদন্ত শফিকুল ইসলাম বলেন বিষয়টি শুনেছি তবে এখনো পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ ওনাদের পক্ষ থেকে পাইনি তবে অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আপলোডকারীর তথ্য

নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ বিরতি চুক্তিতে বাধা দেয়ার অভিযোগ

চুয়াডাঙ্গায় জমি নিয়ে বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ৫, দুই জনের অবস্থা আশংকাজনক

আপডেট সময় : ০৬:২২:৫১ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ মে ২০২৩

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার জুড়ানপুর ইউনিয়নের ইব্রাহিমপুরে চাচাতো ভাইদের সাথে জমি জমা নিয়ে বিরোধের জেরে একই পরিবারের ৫ জনকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে। পরিবারের সবাই চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছে প্রত্যেকের শরীরে একাধিক সেলাই দেয়া হয়েছে হয়েছে। সেই সাথে দুইজনের হাত এবং পা ভেঙ্গে গেছে। আর দুজনের অবস্থা আশংকাজনক। আহতরা হলেন ইব্রাহিমপুর গ্রামের মৃত রবিউল জোয়ার্দারের দুই ছেলে ইয়ারুল জোয়ার্দার (৫২) ও জিনারুল জোয়ার্দার (৪৭)।এবং জিনারুলের জোয়ার্দারের ছেলে রোকন জোয়ার্দার (২৩)। এছাড়াও সাইদান জোয়ার্দারের ছেলে রাজন জোয়ার্দার (৩৫)। আহত ইয়ারুলের ছেলে আসাদুজ্জামান আসাদ (২৪)। একই পরিবারের ৫ জন আহত হয়ে হাসপাতালে। প্রত্যেকেই মর্মান্তিক ভাবে রক্তাক্ত ও জখম। প্রত্যেকের শরীরে একাধিক সেলাই করা হয়েছে। হাত পা ভেঙ্গে যাওয়া সহ আঙ্গুল কেটে পড়ে গেছে তাদের দুইজনের। ঘটনাটি ঘটে গত ২ মে মঙ্গলবার দুপুর ১২ টার সময়। আহত ইয়ারুল সাংবাদিকদের কে বলেন,
আমার চাচাতো ভাইয়ের পরিবারের লোকজন শক্তিশালী এবং ক্ষমতাবান হওয়ায় দীর্ঘদিন আমরা নির্যাতিত নিপিড়ীত। বাপ দাদার প্রায় ১৫ বিঘা জমি তারা জোরপুর্বক ভুয়া দলিল করে দখল করে খাচ্ছে। আবার আমাদের উপর এভাবে আক্রমন করছে। তিনি আরো বলেন লাল মোহাম্মদের দুই ছেলে রকি (৩০) ও রবিন (২৫)। মৃত লুৎফর জোয়ার্দারের তিন ছেলে মিলন জোয়ার্দার (৫৫), লাল মুহাম্মদ (৫০) ও শিল্টু জোয়ারদার। এদের হাতে থাকা ধারালো দা, হাসুয়া ও লাটির আক্রমনের শিকার আমরা সবাই। তারা আমাদের কে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করেছে।
স্থানীয় জনসাধারণ তাদের কে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। স্থানীয় লোকজন সাংবাদিকদের জানান দির্ঘদিন তাদের মাঝে জমি জমা নিয়ে ঝামেলা রয়েছে পারিবারিক ভাবে তাদের মাঝে কলোহ বাধতেই থাকে। একাধিকবার স্থানীয় ভাবে গ্রামে, থানায়, এসপি অফিসে বসার পরেও কোন সমাধান হয়নি। জমি জমার বিষয় নিয়ে দুই পক্ষের বেশ কয়েকটি মামলা ও চলমান রয়েছে আদালতে। তবে এভাবে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করা কে এলাকাবাসী নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে সুষ্ঠু বিচার দাবী করেন। চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট সার্জারী ডাক্তার ওয়ালিউর রহমান নয়ন বলেন, তাদের চিকিৎসা চলছে, তারা অনেকটা আশংকা মুক্ত। আশা করা যায় এই হাসপাতালের চিকিৎসায় তাদের কে সুস্থ করে তোলা যাবে তবে সময় লাগবে। আহত আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন তার মটর সাইকেল ভেঙ্গে দেয়া হয়েছে। এবং দোকানের দুই সেট চাবিসহ ৩৫০০০ টাকার একটি ব্যাগ সেখানে পড়ে গেলে তা খুজে পাইনি। তবে ওরাই নিয়েছে বলে তিনি জানান।
দামুড়হুদা থানা অফিসার ইনচার্জ ছুটিতে থাকায় ইন্সপেক্টর তদন্ত শফিকুল ইসলাম বলেন বিষয়টি শুনেছি তবে এখনো পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ ওনাদের পক্ষ থেকে পাইনি তবে অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।